বুধবার, ২৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, সন্ধ্যা ৬:২৭ |
শিরোনামঃ
পোরশা নিতপুর আলোর পথে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে একীভূতকরণের কৌশল শিখন – শেখানো এবং মূল্যায়ন বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা ব্যাপক অনিয়মের মাধ্যমে এমপিও ভুক্ত হলেন কাজেম আলী সহ স্কুল এন্ড কলেজের ৩ শিক্ষক দীঘিনালায় বন্যার্তদের মাঝে সেনাবাহিনীর ত্রান সহায়তা বেনাপোল এর কৃতিসন্তান রিজু হলেন ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের সহ- সভাপতি চলে গেল রেমাল রেখে গেল অনেক ক্ষত রেমাল‘র প্রভাবে ভারি বর্ষণে দীঘিনালায় নিম্নাঞ্চল প্লাবিত উপজেলা প্রশাসনের ত্রান বিতরণ সপথ অনুষ্ঠানেই বাঘিনী কন্যার পরিচয় দিলেন – সুমি: সীতাকুণ্ডে ১৪টি মামলার আসামি জয়নাল আবোদীন মিনু ৫০৪পিছ ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার। বিজয়নগরে এবার ২০ কোটি টাকার লিচু বিক্রির লক্ষ্য উপকূলে চলছে ঘূর্ণিঝড় রিমালের ব্যাপক তান্ডব !
  • HOME
  • জাতীয়
  • জমি বা ফ্ল্যাট বিক্রিতে বাড়তি কর মওকুফ
  • জমি বা ফ্ল্যাট বিক্রিতে বাড়তি কর মওকুফ

    দৈনিক দেশ প্রতিদিন
    সংবাদটি শেয়ার করুন

    জমি বা ফ্ল্যাটসহ ব্যক্তিগত স্থাবর সম্পত্তি বিক্রির সময় প্রদেয় করকে চূড়ান্ত কর দায় হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে। ফলে বিক্রেতাকে আর অতিরিক্ত কোনো কর দিতে হবে না।

    ১১ অক্টোবর জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) জারি করা এক প্রজ্ঞাপন সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। ওই প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, আয়কর আইন-২০২৩–এর ৭৬ নম্বর ধারার ১ নম্বর উপধারার ক্ষমতাবলে ব্যক্তি শ্রেণির করদাতাদের জন্য সম্পত্তি হস্তান্তর থেকে অর্জিত মূলধনি আয়ে উৎসে কর্তন করা করের পরিমাণকে চূড়ান্ত কর দায় হিসেবে নির্ধারণ করা হবে। এক্ষেত্রে অর্জিত আয়ের বিপরীতে অতিরিক্ত কোনো কর পরিশোধ করা থেকে অব্যাহতি দেওয়া হলো।

    এর আগে গত ৪ অক্টোবর জমি রেজিস্ট্রেশনে কর কমায় জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। একইসঙ্গে এলাকাভিত্তিক জমি রেজিস্ট্রেশন বা নিবন্ধন কর থেকে সরে এসে মৌজাভিত্তিক জমি কর নির্ধারণ করা হয়।প্রজ্ঞাপনে মৌজা অনুযায়ী বিভিন্ন বাণিজ্যিক ও আবাসিক এলাকার জমি নিবন্ধন কর পুনর্নির্ধারণ করা হয়েছে। এর আগে উৎসে কর বিধিমালায় জমি নিবন্ধনের সর্বোচ্চ করহার ছিল ২০ লাখ টাকা বা দলিল মূল্যের ৮ শতাংশের মধ্যে যেটি সর্বোচ্চ, যা এখন সংশোধিত এসআরওতে করা হয়েছে– ১৫ লাখ টাকা বা দলিল মূল্যের ওপর ৮ শতাংশের যেটি সর্বোচ্চ।

    নতুন আদেশ অনুযায়ী জমিকে ৫ ভাগে ভাগ করা হয়েছে। এর মধ্যে ‘ক’ শ্রেণির জমি সরকারি সংস্থা নির্মিত বাণিজ্যিক এলাকা, ‘খ’ শ্রেণি সরকারি সংস্থার আবাসিক এলাকা, ‘গ’ ও ‘ঘ’ শ্রেণি হবে যথাক্রমে বেসরকারি কোম্পানি প্রতিষ্ঠিত বাণিজ্যিক ও আবাসিক এলাকা। এই চার শ্রেণির বাইরের জমি থাকবে ‘ঙ’ শ্রেণিতে। শ্রেণি অনুযায়ী নিবন্ধন কর নির্ধারণ করা হয়েছে।

    চলতি অর্থবছরের বাজেটে জমি ও ফ্ল্যাটের নিবন্ধন ব্যয় চূড়ান্ত করে দেয় সরকার। জমি বিক্রির সময় চুক্তিমূল্যের ৮ শতাংশ কর অথবা এলাকা ভেদে কাঠাপ্রতি ন্যূনতম কর নির্ধারণ করা হয়। অন্যদিকে, ফ্ল্যাট নিবন্ধনের ক্ষেত্রে প্রতি বর্গমিটারে ৮০০ টাকা বা চুক্তিমূল্যের ৮ শতাংশ– যেটি বেশি, সেটি কর হিসেবে দিতে হবে। এর পাশাপাশি জমি বা সম্পত্তি বিক্রিতে পাওয়া লাভের টাকায় বাড়তি করের বিধান রাখা হয়েছিল নতুন আয়কর আইনে।

    পৃথক পৃথক জারি করা প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে নিবন্ধনের করহার কমানোর পাশাপাশি বাড়তি কর বা গেইন ট্যাক্স থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

    সংবাদটি শেয়ার করুন

    Read More..

    দেশের তরুণ প্রজন্মের খবর কী?
    প্রথম ফ্লাইটে সৌদি আরব গেলেন ৪১০ জন হজযাত্রী
    কর্ণফুলীতে প্রশিক্ষণ বিমান বিধ্বস্ত, পাইলটের মৃত্যু রাতে নদী থেকে বিমানটি উদ্ধার
    মধ্যপ্রাচ্যে সংঘাত হলে প্রভাব পড়বে বাংলাদেশে: প্রধানমন্ত্রী
    মনোহরদীতে মডেল মসজিদের বকেয়া বিদ্যুৎ বিল প্রায় ৫ লাখ টাকা
    আজ বিশ্ব গণমাধ্যম দিবস
    কক্সবাজার পেকুয়ার ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা দেখে লবণ ওঠাতে গিয়ে বজ্রপাতে দুই লবণ চাষির মৃত্যু হয়েছে
    আজ পহেলা মে দিবস | প্রতিবছর আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবস হিসাবে পালন করা হয
    নোটিশ :