সোমবার, ১৭ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, সকাল ৮:০৩ |
শিরোনামঃ
পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন নান্দাইল উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শফিউল ইসলাম রাসেল হতদরিদ্রের মাঝে ঈদ সামগ্রী দিলেন এমপি সিদ্দিকুর রহমান পাটোয়ারী  রাঙ্গাবালী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আরিফ, সম্পাদক জামিল  নরসিংদীর শিবপুরে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ  সীতাকুণ্ডের কুমিরায় গঙ্গাপূজায় গিয়ে সাগরে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান- শ্যামল  মাদক একটি অভিশপ্ত জীবন আলহাজ্ব সাখাওয়াৎ হোসেন সুমন  পবিত্র ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন আলহাজ্ব শাহ মঞ্জুর মোরশেদ চৌধুরী  যুবলীগ কর্মী আজাদ হত্যাকান্ড; আসামীরা ১১ মাস বাড়ি ছাড়া! কালিয়ায় দুই শতাধিক পরিবার বাড়িতে ঈদ করতে পারছে না  নোয়াখালীতে সৌদিআরব এর সাথে মিল রেখে কিছু সংখ্যক জাগায় ঈদুল আজহা অনুষ্ঠিত হয়। 
  • HOME
  • ধর্ম
  • রাসূল (স.) এর কাফন দাফন ও গোসল
  • রাসূল (স.) এর কাফন দাফন ও গোসল

    দৈনিক দেশ প্রতিদিন
    সংবাদটি শেয়ার করুন

    ইসলামিক গবেষক ও চিন্তাবিদ দৈনিক দেশ প্রতিদিন

    মূফতি আবুল কাসেম আযমী

    রাসূল (স.) এর কাফন দাফন ও গোসলসিদ্দীকে আকবার আবু বকর রাযি. এর হাতে বায়াত সম্পন্ন হওয়ার পর সকলে রাসূল স. এর কাফন-দাফন ও গোসল ইত্যাদিতে মনোনিবেশ করেন। গোসল করানোর ক্ষেত্রে প্রশ্ন উত্থাপিত হয়,হুযুরের পবিত্র বদনে পরিহিত পোশাক খোলা হবে না তা গায়ে থাকা অবস্থাতেই গোসল দেওয়া হবে? বিষয়টি তখনো ফয়সালা হয়নি, এমন সময় উপস্থিত সকলের মাঝে তন্দ্রার ভাব সৃষ্টি হল।

     

    এ অবস্থায় তারা শুনলেন, আল্লাহর রাসূলকে নগ্ন করো না,পরনের কাপড় রেখেই গোসল দাও। তন্দ্রার ভাব চলে যাওয়ার পর তাঁরা নবীজীর পরনের জামা গায়ে রেখেই তার গোসল সমাপ্ত করেন। এর পর ভেজা কাপড় বদলিয়ে কাফনের কাপড় পরিয়ে দেওয়া হয়।

     

    হযরত আলী রাযি. রাসূল স. কে গোসল দিচ্ছেলেন, হযরত আব্বাস রাযি. ও তাঁর দুই পুত্র ফযল ও ক্বাসাম নবীজীর দেহ পার্শ্ব পরিবর্তন করে দিচ্ছিলেন আর হযরত ওসামা ও শাকরান রাযি. পানি ঢেলে ঢেলে দিচ্ছিলেন। ( আল বিদায়া ওয়ান নিহায়া: ৫/২৬০) গোসল শেষে সুতি কাপড়ের তিনটি কাপড় দ্বারা কাফন পরানো হয় তান্মধ্যে কামিস ও পাগড়ি ছিল না। আর গোসলের পূর্বে যে জামা পরনে ছিল তা খুলে ফেলা হয়েছিল। ( ইত্হাফ: ১০/২৬০)

    গোসল ও কাফন পরানোর পর প্রশ্ন উত্থাপিত হয়, কোথায় রাসূল (স.)-কে দাফন করা হবে? এ প্রসঙ্গে সিদ্দীকে আকবার রাযি. বললেন, আমি (স.)- কে বলতে শুনেছি, নবীগন সেখানেই কবরস্থ হন যেখানে তাঁদের রুহ অন্তর্হিত হয়।

    (তিরমিযী ইবনে মাজা)

    তাঁর এ বর্ণনা অনুসারে রাসূল (স.) এর বিছানা সরিয়ে সেখানেই কবর খোদাই করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। কিন্তু এ পর্যায়ে বিতর্ক সৃষ্টি হয় – কোন ধরনের কবর খোদাই করা হবে। মুহাজির সাহাবীগন মক্কার রীতি অনুসারে বগলী কবর খোদতে চাইলে আনসারী সাহাবীগণ বললেন, মদিনার রীতি অনুসারে লাহদ কবর খোদাই করা হোক।

    হযরত আবু ওবায়দা রাদিয়াল্লাহু তা’আলা আনহু বগলী কবর এবং হযরত আবু তালহা রাদিয়াল্লাহু তা’আলা আনহু লাহদ কবর বেশ ভালো খোদাই করতে পারতেন। সিদ্ধান্ত হলো, দুজনকেই খবর দিতে লোক পাঠানো হবে, যে আগে এসে পৌছবে তার নিয়ম অনুযায়ী কাজ সম্পন্ন করবে। হযরত আবু তালহা রযিআল্লাহু তা’আলা আনহু, আগে এসে পৌঁছলেন। রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লা এর জন্য লাহদ কবর খোদাই করলেন। ( যুরকানী : ৮/২৯২ ও তাবাকাতে ইবনে সা’দ : ২/৫৯)

    বুখারী শরীফের বর্ণনায় রয়েছে, কবরের উপর অংশ উটের কুঁজের ন্যায় স্বল্প উঁচু করে দেওয়া হয়।
    মাসয়ালা ঃ প্রত্যেক নবী তার মরণস্থলেই কবরস্থ হবেন – এটি কোন জরুরি বিষয় নয়, বরং তা উত্তম। কোন কারণবশত ঃ যদি মরণস্থল ব্যতীত অন্যত্র দাফন করা হয়, তাতে কোনই আপত্তির কিছু নেই।

    জানাযার নামায
    ইবনে মাজা শরীফে হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আব্বাস রাদিয়াল্লাহু তা’আলা আনহু এর বর্ণনা রয়েছে। তিনি বলেন, মঙ্গলবার দিন যখন সাহাবাগণ রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর গোসল ও কাফন সমাপ্ত করলেন, তার পবিত্র দেহ কবরের পাশে রেখে দিলেন। সাহাবাগণ একদল একদল করে ভিতরে আসতে লাগলেন, কোন ইমামের ইমামতিতে তারা জানাযা নামায না পড়ে প্রত্যেকে একা জানাযার নামায পড়লেন, নামায শেষে বের হয়ে গেলেন।

    সামায়েলে তিরমিজী তে বর্ণিত হয়েছে , উপস্থিত সকলে সিদ্দিকে আকবার রাযিআল্লাহু তা’আলা আনহু এর নিকট জিজ্ঞাসা করতে লাগলেন, আমরা কি নবীজির জানাযার নামায পড়ব? হযরত আবু বকর রাযি. জবাব দিলেন হ্যাঁ, পড়ো।
    তারা জিজ্ঞাসা করল কিভাবে পড়ব? হযরত আবু বকর রাযি. বললেন,

    একদল একদল করে কামড়ায় ঢুকবে, এরপর প্রত্যেককে নামাযের তাকবীর বলে নামায শুরু করবে, দুরুদ ও দোয়া পড়বে। এরপর তারা বাইরে বের হয়ে আসবে। এরপর একদল ঢুকবে, তারাও পূর্ববর্তীদের ন্যায় তাকবীর বলবে, দুরুদ ও দোয়া পড়বে। এরপর বাইরে বের হয়ে আসবে। এভাবে সাবাই জানাযার নামায আদায় করবে। (সীরাতে মুস্তফা ৩য় খন্ড)

    সংবাদটি শেয়ার করুন

    Read More..

    পবিত্র ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন আলহাজ্ব শাহ মঞ্জুর মোরশেদ চৌধুরী 
    কোরবানীর প্রকৃত হাকিকত বনাম আমাদের নৈতিক বাস্তবতায় ইসলামের ধর্মীয় বর্তমান শিক্ষা আজ ভূ-লন্ঠিত
    ইসলামের প্রাথমিক যুগ
    মুসলমানদের ধর্ম বিশ্বাসের মূল ভিত্তি আল্লাহর একত্ববাদ
    আজকের নামাজ এর সময়সূচি, সৌজন্যে: দৈনিক দেশ প্রতিদিন
    হজ কর্মসূচি – ২০২৪ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী
    মনোহরদীতে মডেল মসজিদের বকেয়া বিদ্যুৎ বিল প্রায় ৫ লাখ টাকা
    হকিকতে মাহে রমজানুল মোবারকের আধ্যাতিকতার নির্দশন স্বরুপ,আমাদেরকে কি শিক্ষা দিয়েছেন? তাহা আমাদের জানা আবশ্যক
    নোটিশ :